Home | বাংলাদেশ | ভূমিমন্ত্রীর ছেলেকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা করলে গাড়িচাপা, ২ পুলিশ আহত

ভূমিমন্ত্রীর ছেলেকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা করলে গাড়িচাপা, ২ পুলিশ আহত

ভূমিমন্ত্রীর ছেলে পাবনার ঈশ্বরদী উপজেলা যুবলীগের সভাপতি শিরহান শরীফ তমালকে (গোলচিহ্নিত) বহনকারী এই গাড়ির চাপায় আজ বুধবার আদালত চত্বরে দুই পুলিশ সদস্য আহত হন। ছবি : এনটিভি
ভূমিমন্ত্রী শামসুর রহমান শরীফ ডিলুর ছেলে ঈশ্বরদী উপজেলা যুবলীগের সভাপতি শিরহান শরীফ তমালকে বহনকারী গাড়ির চাপায় দুই পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন। তাঁদের অবস্থা গুরুতর।

আজ বুধবার দুপুরে সাংবাদিকদের ওপর হামলার ঘটনায় আদালতে আত্মসমর্পণের সময় পাবনা জজকোর্টে এ ঘটনা ঘটে। পাবনা আমলি আদালত ১-এর বিচারক রেজাউল করিম জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে তাঁকে জেলহাজতে পাঠান।

এদিকে বুধবার সকাল থেকেই আদালত চত্বরে ভিড় জমান তমালের সমর্থকরা। তাঁরা আদালত চত্বরে দফায় দফায় মিছিল শুরু করলে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়লে আদালত এলাকায় পুলিশি নিরাপত্তা জোরদার করা হয়। দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে তমালকে বহনকারী গাড়িটি পুলিশকে চাপা দিয়ে আদালত চত্বরে প্রবেশ করে। এ সময় দুই পুলিশ সদস্য আহত হন। তাঁদের পাবনা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

পাবনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার গৌতম কুমার বিশ্বাস ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, পাবনার রাষ্ট্রপক্ষের কৌঁসুলি (পিপি) আক্তারুজ্জামানের গাড়িতে করে মামলার প্রধান আসামি ও ঈশ্বরদী উপজেলা যুবলীগের সভাপতি শিরহান শরীফ তমাল আদালত চত্বরে আসেন। এ সময় পুলিশ বাধা দিয়ে গ্রেপ্তারের চেষ্টা করলে গাড়িটি পুলিশকে চাপা দিয়ে ভেতরে প্রবেশ করে। এ সময় গোয়েন্দা পুলিশের সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) আবু সাঈদ ও কনস্টেবল জাহাঙ্গীর হোসেন মারাত্মক আহত হন। এই ঘটনায় পুলিশ সুপার জেলার বাইরে অবস্থান করার কারণে এখনো সিদ্ধান্ত হয়নি। তবে মামলা করা বলে তিনি জানান।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, আদালত চত্বরে ১৭টি মাইক্রোবাসে করে তমালের সমর্থকরা এসে বিক্ষোভ মিছিল করে। আদালতের আশপাশে তাঁর ক্যাডার বাহিনী মহড়া দিতে থাকে।

গত ২৯ নভেম্বর রূপপুর পারমাণবিক প্রকল্প এলাকায় সশস্ত্র অবস্থায় প্রতিপক্ষের ওপর হামলা করে তমাল ও উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক রাজীব সরকারের নেতৃত্বে ক্যাডার বাহিনী। এ ঘটনার ছবি ধারণ করতে গেলে তাদের হামলায় গুরুতর আহত হন বাংলাদেশ প্রতিদিন ও সময় টেলিভিশনের জেলা প্রতিনিধি এস এ আসাদ, ডিবিসির জেলা প্রতিনিধি পার্থ হাসান, এটিএন নিউজের জেলা প্রতিনিধি রিজভী জয়, ক্যামেরাপারসন মিলন হোসেন।

এ ঘটনায় তমাল ও রাজীব সরকারের নাম উল্লেখ করে আরো অজ্ঞাত ২৫ থেকে ৩০ জনকে আসামি করে ডিবিসির জেলা প্রতিনিধি পার্থ হাসান বাদী হয়ে ঈশ্বরদী থানায় মামলা করেন।

ঘটনার পরপর আন্দোলনে নামেন সাংবাদিকরা। বিভিন্ন সময় বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেন তাঁরা। দোষীদের গ্রেপ্তারের দাবিতে একাধিকবার আলটিমেটাম দেন সাংবাদিক নেতারা।

Comments

comments

About admin

Check Also

রবিবার থেকে বাড়বে শীত, ফের শৈত্যপ্রবাহের আশঙ্কা

কয়েক সপ্তাহের তীব্র শীতের পর বাড়তে শুরু করেছে তাপমাত্রা। আগামী দু’দিন এই পরিস্থিতি অব্যাহত থাকলেও …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *