Home | সারাদেশ | হাতি দিয়ে চাঁদাবাজি-ভাংচুর সংঘর্ষ

হাতি দিয়ে চাঁদাবাজি-ভাংচুর সংঘর্ষ

দিনাজপুরের বীরগঞ্জে হাতি দিয়ে চাঁদাবাজির সময় ব্যবসায়ীদের সঙ্গে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ সময় তিনজন আহত হয়েছেন।
মঙ্গলবার দুপুর ১টায় উপজেলার শতগ্রাম ইউনিয়নের ঝাড়বাড়ী বাজারে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় হাতির এক মাহুতের সহযোগীকে আটক করে স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদে দিয়েছে স্থানীয় জনতা।

স্থানীয়রা জানায়, দুপুরে ২টি হাতি নিয়ে ৬ জন লোক শতগ্রাম ইউনিয়নের ঝাড়বাড়ী বাজারে আসে। এ সময় তারা হাতি দিয়ে বিভিন্ন দোকান হতে ২০ থেকে ৪০ টাকা করে চাঁদা তুলতে থাকে।

অনেক দোকানদার ওই পরিমাণ টাকা দিতে না পারায় হাতি দিয়ে তাদের ওপর চড়াও হয় হাতির মাহুত। এ নিয়ে স্থানীয় ব্যবসায়ীরা প্রতিবাদ জানালে তারা হাতি দিয়ে দোকান এবং দোকানের আসবাবপত্র ভাঙচুর করে।

ব্যবসায়ীরা তাদেরকে লক্ষ্য করে ইট পাটকেল ছুড়ে মারে। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে হাতির মাহুত হাতিকে দিয়ে একটি অটোরিকশার ওপর হামলা চালায়। এতে পঞ্চগড় জেলার দেবিগঞ্জ উপজেলার সুন্দরদিঘী গ্রামের শ্যামল দেব নাথ (৩২) নামে এক আটোচালকসহ দুই যাত্রী আহত হয়।

এ ঘটনার পর এলাকাবাসী ঐক্যবদ্ধ হয়ে হাতিগুলোকে ঘেরাও করে। পরিস্থিতি বেগতিক দেখে হাতি ফেলে পালিয়ে যায় মাহুত। পালিয়ে যাবার সময় জয়পুর হাট জেলার ধামোর উপজেলার উত্তর চক্রমোহন গ্রামের মো. গোলাম মোস্তফার ছেলে মো. সাইফুল ইসলাম (২৮) নামে একজনকে আটক করে স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদে দেয় এলাকাবাসী।

শতগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ডা. কেএম কুতুব উদ্দিন বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, পরিষদের কাজে বর্তমানে আমি উপজেলা সদরে থাকার কারণে সংঘর্ষের সঠিক কারণ সম্পর্কে অবহিত নই। ঘটনার পর বিষয়টি আমাকে বীরগঞ্জ থানা প্রশাসন অবহিত করেছে। তবে পালিয়ে যাবার সময় হাতিগুলো রেখে গেছে বলে জানতে পেরেছি। আমি এ ব্যাপারে খোঁজ খবর রাখছি এবং পরিস্থিতি শান্ত রাখতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে পরিষদের উপস্থিত সকলকে যাবতীয় নিদের্শনা দিয়েছি।

বীরগঞ্জ থানা পুলিশের এসআই প্রাণ কৃষ্ণ রায় ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, বিষয়টি আমরা জেনেছি। তবে লিখিতভাবে কোনো অভিযোগ পাইনি। বিষয়টি শতগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ডা. কেএম কুতুব উদ্দিনকে অবহিত করা হয়েছে।

Comments

comments

About admin

Check Also

নিজ বাড়িতে কম্বলের ভেতর গলাকাটা লাশের পচা গন্ধ!

নীলফামারী সদর উপজেলার বিহারীপাড়া গ্রামে নিজ বাড়ি থেকে কম্বল মোড়ানো অর্ধগলিত জাহেদুল ইসলাম (৪৫) নামে এক ব্যক্তির গলাকাটা লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার সকালে লাশটি উদ্ধার করা হয়। নিহত জাহেদুল ওই গ্রামের আব্দুল খালেকের ছেলে। এলাকাবাসী জানায়, জাহিদুল এলাকায় সন্ত্রাসী হিসেবে পরিচিত ছিলেন। তিনি একটি মামলায় দীর্ঘদিন কারাগারে থাকার পর সম্প্রতি জামিনে বের হয়ে আসেন। বুধব

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *